Festival

বাংলাদেশের সকল জেলার সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি ২০২৩

Rate this post

বাংলাদেশের সকল জেলার সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি ২০২৩: রমজানের সয়ম সুচি ২০২৩ বা রমজান ক্যালেন্ডার ২০২৩ নিয়ে আজকেরে এই পোস্ট সাজানো হয়েছে। রমজানের ক্যালেন্ডার ২০২৩ এই পোস্টে রোজার সময়সূচী আছে।

পবিত্র মাহে রমজান মাসের সময়সূচি প্রকাশিত হয়েছে। ‌ বাংলাদেশ ইসলামিক ফাউন্ডেশন থেকে ২০২৩ সালের রমজান মাসের সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি প্রকাশ করা হবে। আজকে আমরা ২০২৩ সালের রমজান মাসের ক্যালেন্ডার এবং সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি প্রকাশ করছি। ‌ এখান থেকে আপনারা পুরো পবিত্র মাহে রমজান মাসের সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি পাবেন। দেশের সকল জেলার ইফতার ও সেহরীর সময়সূচী পেতে সম্পূর্ণ পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন।

বাংলাদেশের সকল জেলার সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি ২০২৩

২০২৩ সালের রমজানের সময়সূচী ও সেহরীর সময়সূচী প্রকাশিত হয়েছে। আপনি যদি রমজান মাসের ইফতার  এবং সেহরির সময়সূচী জানতে চান তাহলে আমার লেখনীটি ভালভাবে পড়ুন। এই লেখনীটি রমজানের সময় সূচির সহ ইফতার সেহরির সময়সূচি সংযুক্ত করা হবে।

বাংলাদেশের ৬৪ জেলা আলাদা আলাদা ভাবে সাহারী ও ইফতারের সময়সূচি প্রকাশ করা হয়েছে। নিজ নিজ জেলার সময়সূচি সংগ্রহ করুন ইনশা-আল্লাহ। আর যদি বিভাগ ভিত্তিক লাগে তা হলে নিচের লিংক থেকে সংগ্রহ করে নিন ইনশাআল্লাহ..

???? ঢাকা বিভাগের সকল জেলাসমূহ: https://cutt.ly/C4fDskJ

???? চট্টগ্রাম বিভাগের সকল জেলাসমূহ: https://cutt.ly/K4fDqzg

???? ময়মনসিংহ বিভাগের সকল জেলাসমূহ: https://cutt.ly/P4fD78J

???? সিলেট বিভাগের সকল জেলাসমূহ: https://cutt.ly/K4fFuM3

???? রংপুর বিভাগের সকল জেলাসমূহ: https://cutt.ly/b4fFd02

???? খুলনা বিভাগের সকল জেলাসমূহ: https://cutt.ly/C4fSEcq

???? রাজশাহী বিভাগের সকল জেলাসমূহ: https://cutt.ly/O4fFkF8

???? বরিশাল বিভাগের সকল জেলাসমূহ: https://cutt.ly/s4fFQXy

সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি ২০২৩

 

রমজানের সময় সূচি

জেলাভিত্তিক রমজানের ইফতার ও সেহরির সময়সূচি

>> ঢাকার সময় হতে বাড়াতে হবে
জেলা সাহরী জেলা ইফতার
মানিকগঞ্জ, বগুড়া, সিরাজগঞ্জ, পঞ্চগড়, নীলফামারী ১মি. গোপালগঞ্জ, বাগেরহাট, ময়মনসিংহ ১মি.
ভোলা, শরীয়তপুর, দিনাজপুর, ঠাকুরগাঁও, জয়পুরহাট, ফরিদপুর, মাদারীপুর, বরিশাল ২মি. মানিকগঞ্জ, টাঙ্গাইল, ফরিদপুর, নড়াইল, খুলনা ২মি.
নওঁগা, ঝালকাঠি ৩মি. শেরপুর, মাগুরা ৩মি.
নাটোর, পাবনা, রাজবাড়ী, মাগুরা, পটুয়াখালি, গোপালগঞ্জ ৪মি. সিরাজগঞ্জ, জামালপুর, রাজবাড়ী, যশোর, সাতক্ষীরা ৪মি.
কুষ্টিয়া, রাজশাহী, পিরােজপুর, বরগুনা, নড়াইল, বাগেরহাট, ঝিনাইদহ ৫মি. কুষ্ঠিয়া, পাবনা, ঝিনাইদহ ৫মি.
চাপাইনবাবগঞ্জ, যশাের চুয়াডাঙ্গা, খুলনা ৬মি. চুয়াডাঙ্গা, গাইবান্ধা, বগুড়া ৬মি.
মেহেরপুর ৭মি. নাটোর, মেহেরপুর, কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট ৭মি.
সাতক্ষীরা ৮মি. রাজশাহী, নওগা, রংপুর, জয়পুরহাট ৮মি.
       
    নীলফামারী, দিনাজপুর, চাপাইনবাবগঞ্জ ১০মি.
    পঞ্চগড়, ঠাকুরগাঁও ১২মি.
>>> ঢাকার সময় হতে কমাতে হবে
জেলা সাহরী জেলা ইফতার
গাজীপুর, লক্ষীপুর, রংপুর, নোয়াখালী, গাইবান্ধা, কক্সবাজার ১মি. শরীয়তপুর, কিশোরগঞ্জ, নরসিংদী, নারায়ণগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জ, ঝালকাঠি ১মি.
শেরপুর, জামালপুর, কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট, চট্টগ্রাম, নরসিংদী ২মি. বরিশাল, পটুয়াখালী, বরগুনা, সুনামগঞ্জ, চাঁদপুর, ২মি.
কুমিল্লা, ময়মনসিংহ, কিশোরগঞ্জ,বান্দরবন ৩মি. বি.বাড়িয়া, লক্ষীপুর, ভোলা, হবিগঞ্জ ৩মি.
বি.বাড়িয়া, রাঙ্গামাটি, বান্দরবন ৪মি. কুমিল্লা, নোয়াখালি, সিলেট, মৌলভীবাজার ৪মি.
নেত্রকোনা, খাগড়াছড়ি ৫মি. ফেনী ৫মি.
হবিগঞ্জ ৬মি.    
সুনামগঞ্জ ৭মি.    
মৌলভীবাজার ৮মি. খাগড়াছড়ি, চট্টগ্রাম ৮মি.
সিলেট ৯মি. রাঙ্গামাটি ৯মি.
    বান্দরবান, কক্সবাজার ১০মি

রোজার নিয়ত :

 

نَوَيْتُ اَنْ اُصُوْمَ غَدًا مِّنْ شَهْرِ رَمْضَانَ الْمُبَارَكِ فَرْضَا لَكَ يَا اللهُ فَتَقَبَّل مِنِّى اِنَّكَ اَنْتَ السَّمِيْعُ الْعَلِيْم

উচ্চারণ- নাওয়াইতু আন আছুমা গাদাম মিন শাহরি রমাদ্বানাল মুবারকি ফারদ্বল্লাকা ইয়া আল্লাহু ফাতাক্বব্বাল মিন্নী ইন্নাকা আনতাস সামীউল আলীম।

বাংলায় নিয়ত :

হে আল্লাহ! আমি আগামীকাল পবিত্র রমজানের তোমার পক্ষ থেকে নির্ধারিত ফরজ রোজা রাখার ইচ্ছা পোষণ (নিয়্যত) করলাম। অতএব তুমি আমার পক্ষ থেকে (আমার রোযা তথা পানাহার থেকে বিরত থাকাকে) কবুল কর, নিশ্চয়ই তুমি সর্বশ্রোতা ও সর্বজ্ঞানী।

ইফতারের দোয়া

اللهم لك صمت و على رزقك افطرتاللهم لك صمت و على رزقك افطرت

উচ্চারণ- আল্লাহুম্মা লাকা ছুমতু ওয়া তাওয়াক্কালতু আ’লা রিজক্বিকা ওয়া আফতারতু বি রাহমাতিকা ইয়া আর্ হামার রা-হিমীন।

ইফতারের বাংলা দোয়া

হে আল্লাহ তায়ালা আমি আপনার নির্দেশিত মাহে রমজানের ফরজ রোজা শেষে আপনারই নির্দেশিত আইন মেনেই রোজার পরিসমাপ্তি করছি ও রহমতের আশা নিয়ে ইফতার আরম্ভ করছি। তারপর “বিসমিল্লাহি ওয়া’আলা বারাকাতিল্লাহ” বলে ইফতার করা।

Back to top button